You are here
Home > বাংলাদেশ > জেলার সংবাদ > লকডাউন কার্যকরে হার্ডলাইনে পুলিশ; পথে পথে চেকপোস্ট

লকডাউন কার্যকরে হার্ডলাইনে পুলিশ; পথে পথে চেকপোস্ট

Share

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ করোনাভাইরাসের দ্বিতীয় ঢেউ মোকাবিলা ও সংক্রমণ রোধে সরকার ঘোষিত লকডাউনে চলাচলে বিধি-নিষেধ মানতে বাধ্য করতে মাঠে প্রস্তুত রয়েছেন সিভিল প্রশাসন এবং আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা। সংক্রমণ আইন অনুযায়ী এজন্য জেলা প্রশাসন এবং পুলিশ সুপারদের ক্ষমতা প্রদান করা হয়েছে।

জেলার বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখা গেল ‘কঠোর লকডাউন’ কার্যকর করার জন্য পুলিশ বিভিন্ন জায়গায় তৎপর রয়েছে। বরিশালের প্রবেশদ্বার গৌরনদীর ভুরঘাটা বাসষ্ট্যান্ডে বরিশাল-ঢাকা মহাসড়কে নিয়মিত চেকপোষ্ট বসিয়েছেন। চেকপোষ্টে সরকার ঘোষিত ১৮ শ্রেণির যানবাহন ব্যতিত ব্যক্তিগত যানবাহন, মোটর সাইকেল আরোহী ও যাত্রীদের মুভমেন্ট পাশ যাচাই বাছাইয়ের কাজ অব্যাহত রেখেছেন গৌরনদী মডেল থানা, হাইওয়ে থানা ও জেলা পুলিশের সদস্যরা। এছাড়াও করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে সামাজিক দুরত্ব নিশ্চিত ও স্বাস্থ্য বিধি মেনে চলতে পথচারীদের সচেতন করা হচ্ছে।

চেকপোষ্টে দায়িত্বে থাকা পুলিশ সদস্যরা জানিয়েছেন, যাদের মুভমেন্ট পাশ নেই তাদেরকে ফিরিয়ে দেয়া হচ্ছে। তবে কঠোর নজরদারির মধ্যেও নানান অজুহাতে পায়ে হেটে কিংবা ছোট যানবাহনে চড়ে অকারনেই মহাসড়কে ঘুরে বেড়াচ্ছে কিছু অসচেতন ব্যক্তিরা।

গৌরনদী মডেল থানার ওসি আফজাল হোসেন জানান, লকডাউন কার্যকর করতে সরকার যে নির্দেশনা দিয়েছে তা বাস্তবায়নে কঠোর পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে। এজন্য মুভমেন্ট পাস ছাড়া কাউকে বাড়ির বাইরে আসতে দেয়া হবে না বলে তিনি জানান।

লকডাউনে বাসা থেকে নিতান্ত প্রয়োজনে কাউকে বের হতে হলে মুভমেন্ট পাসের জন্য (https://movementpass.police.gov.bd) ওয়েব ঠিকানায় ঢুকে আবেদন করতে হবে। শুরুতে একটি সক্রিয় মোবাইল ফোন নম্বর দিতে হবে। আবেদনকারী কোথা থেকে কোথায় যাবেন, তা জানতে চাওয়া হবে। সেই সব তথ্য ধাপে ধাপে দিতে হবে।

এরপর আবেদনকারীর একটি ছবি আপলোড করে আবেদন জমা (সাবমিট) দিতে হবে। এরপর ফিরতি মেইল বা বার্তা আবেদনকারীকে পাঠানো হবে। সেটি ডাউনলোড করে প্রিন্ট নেওয়া যাবে। প্রিন্ট কপিটিই মুভমেন্ট পাস হিসেবে গণ্য করা হবে।

Leave a Reply

Top