You are here
Home > বাংলাদেশ > জেলার সংবাদ > গৌরনদীতে তিন ফার্মেসীকে ৩২ হাজার টাকা জরিমানা

গৌরনদীতে তিন ফার্মেসীকে ৩২ হাজার টাকা জরিমানা

Share

বরিশালের গৌরনদীতে মেয়াদোত্তীর্ণ ও অননুমোদিত ওষুধ বিক্রি, ড্রাগ লাইসেন্স এবং রেজিস্টার্ড ফার্মাসিস্ট না থাকায় তিনটি ফার্মেসিকে ৩২ হাজার টাকা জরিমানা করেছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত।

সোমবার (২২ মার্চ) দুপুরে উপজেলার গৌরনদী বাসষ্টান্ড এলাকায় অভিযান চালিয়ে ভ্রাম্যমাণ আদালত এই জরিমানা আদায় করেন।

জেলা ওষুধ প্রশাসন অধিদফতরের সহায়তায় পরিচালিত এই অভিযানে নেতৃত্ব দেন গৌরনদী উপজেলার নির্বাহী অফিসার বিপিন চন্দ্র বিশ্বাস।

অভিযানের সময় ফার্মেসী গুলোতে বায়োলজিক্যাল ওষুধ সঠিক তাপমাত্রার ফ্রীজে সংরক্ষণ করার কঠোর নির্দেশনা প্রদান করেন ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, ওষুধ সাধারণত তিন ধরনের তাপমাত্রায় সংরক্ষণের নিয়ম। বায়োলজিক্যাল বা ভ্যাকসিন-জাতীয় ওষুধ ৪-৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রায় রাখতে হয়। অ্যান্টিবায়োটিক জাতীয় ওষুধ রাখতে হয় ১২-২০ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রায়। কিছু ওষুধ স্বাভাবিক তাপমাত্রা, ২৫ ডিগ্রি থেকে ৩০ ডিগ্রি সেলসিয়াসের মধ্যে রাখা যায়। এর ব্যতিক্রম হলেই সমস্যা। কারখানায় মানসম্পন্ন ওষুধ উৎপাদন হলেও ‘তাপমাত্রা অনিয়ন্ত্রিত’ ফার্মেসি থেকে এসব ওষুধ সংগ্রহ করে রোগীরা মানসম্পন্ন ওষুধ গ্রহণ করতে পারছেন না। ফলে রোগীর সুচিকিৎসা নিশ্চিত হচ্ছে কি না, তা নিয়ে গভীর সন্দেহ থেকেই যায়। ফার্মেসির অধিকাংশই নিয়ন্ত্রিত তাপমাত্রায় ওষুধ সংরক্ষণ করে না। এতে নষ্ট হচ্ছে ওষুধের মান। এর ফলে ওষুধের কার্যকারিতা দিন দিন কমে যাচ্ছে।

জেলা ওষুধ প্রশাসন অধিদফতরের পরিচালক অদিতী স্বর্না বলেন, উপজেলার গৌরনদী বাসষ্টান্ড এলাকায় বিভিন্ন ফার্মেসিতে অভিযান চালানো হয়। এই সময় তিনটি ফার্মেসিতে মেয়াদোত্তীর্ণ, অবৈধ ওষুধ পাওয়া যায়।

তিনি বলেন, অভিযানে ঈশাম মেডিসিন হাউজকে ১৫ হাজার, আল মক্কা ফার্মেসীকে ১৫ হাজার এবং মা মেডিসিন কর্নারকে ২ হাজার টাকা জরিমানা করেছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত।

উপজেলার নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট বিপিন চন্দ্র বিশ্বাস বলেন, নিষিদ্ধ ও মেয়াদোত্তীর্ণ ওষুধ রাখা এবং বিক্রি করা, ড্রাগ লাইসেন্স এবং রেজিস্টার্ড ফার্মাসিস্ট না থাকায় তিন ওষুধ ব্যাবসায়িকে জরিমানা করা হয়েছে। ফার্মেসির অধিকাংশই বায়োলজিক্যাল ওষুধ নিয়ন্ত্রিত তাপমাত্রায় সংরক্ষণ করে না। তাই তাদেরকে সঠিক তাপমাত্রায় ওষুধ সংরক্ষণের জন্য নির্দেশনা প্রদান করা হয়েছে। নিয়মানুযায়ী ব্যাবস্থা না নিলে সেই সকল ফার্মেসীর বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে। জনস্বার্থে তাদের এ অভিযান অব্যাহত থাকবে।

Leave a Reply

Top