You are here
Home > বাংলাদেশ > কুয়েতে এমপি পাপুলের চার বছরের কারাদন্ড

কুয়েতে এমপি পাপুলের চার বছরের কারাদন্ড

Share

বিদেশে মানবপাচার ও অর্থপাচারের অভিযোগে লক্ষ্মীপুর-২ সংসদ সদস্য কাজী শহিদ ইসলাম পাপুলকে ৪বছরের সাজা দিয়েছে কুয়েতের ফৌজদারি আদালত।

বৃহস্পতিবার(২৮ জানুয়ারী) কুয়েতের স্থানীয় কয়েকটি সংবাদ মাধ্যম জানায় বিচারপতি আবদুল্লাহ আল ওসমান এ রায় ঘোষণা করেন।
বর্তমানে পাপুল সেদেশের আদালতে আটক রয়েছেন।

চার বছরের কারাদণ্ডেন পাশাপাশি আদালত তাকে ১৯লাখ কুয়েতি দিনারও জরিমানা করা হয়।

উল্লেখ্য মানবপাচার ও অর্থপাচারের অভিযোগে গত বছর ৬জুন রাতে কুযেতের মুশরেফ আবাসিক এলাকা থেকে পাপুলকে গ্রেফতার করেন কুয়েত অপরাধ তদন্ত বিভাগ(সিআইডি)।সে বছরের ১৭সেপ্টম্বর তার বিরুদ্ধে করা মামলার পূর্ণাঙ্গ শুনানি শুরু হয় একই সঙ্গে পাপুলের সঙ্গে সম্পৃক্ততা থাকা ও সহযোগিতা করার অভিযোগে কুয়েতের পার্লামেন্টের দুই সদস্য সাদাউন হামাদ ও সালাহ্ খুরশিদ,জ্যেষ্ঠ সেনা কর্মকর্তার মেজর জেনারেল শেখ মাজন আল জারাহসহ মোট ১৩জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ আনা হয় এবং মুচলেকা দিযে আদালত তাদের জামিন দেন।
গ্রেফতারের পর এমপি পাপুলের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান মারাফিয়া কুয়েতিয়াকে কালো তালিকাভুক্ত করেছে কুয়েত সরকার। প্রতিষ্ঠানটির সঙ্গে সরকারের কয়েকটি চুক্তি ও কাজের আদেশও বাতিল করা হয়েছে।

এদিকে পাপুলের সম্পদের তথ্য চেয়ে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমে চিঠি পাঠিয়েছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। গত মঙ্গলবার (২৬ জানুয়ারি) দুপুরে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমে এ চিঠি পাঠানো হয়।কই সময়ে পাপুল ও তার পরিবারের নামে বিভিন্ন ব্যাংকে অস্বাভাবিক লেনেদেনের তথ্যের ভিত্তিতে তার বিরুদ্ধে অবৈধ সম্পদ অর্জনের অনুসন্ধান শুরু করে দুদক।

গত ২৭ ডিসেম্বর পাপুলের পরিবারের ৮টি ব্যাংকের ৬১৭টি ব্যাংক হিসাব, ৩০ একরের বেশি জমি, গুলশানের ফ্ল্যাটসহ দেশে থাকা সম্পদ জব্দ করে দুদক। ১১ নভেম্বর অর্থপাচার ও অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগে এমপি পাপুল, তার স্ত্রী এমপি সেলিনা ইসলাম, মেয়ে ওয়াফা ইসলাম ও শ্যালিকা জেসমিন প্রধানকে আসামি করে মামলা করে দুদক।

 

Top