পাঁচ ঘণ্টা চেষ্টার পর চকবাজারের প্লাস্টিক কারখানার আগুন নিয়ন্ত্রণে

অনলাইন ডেস্ক।
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  12:52 PM, 11 December 2020

Share

চকবাজারের কেবি রুদ্ররোডের নোয়াখালী ভবনে প্লাস্টিক কারখানায় বৃহস্পতিবার দিবাগত রাতে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। দীর্ঘ পাঁচ ঘণ্টা চেষ্টার পর ফায়ার সার্ভিস অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্সের ১৫টি ইউনিট আগুণ নিয়ন্ত্রনে আনে।

শুক্রবার (১১ ডিসেম্বর) সকালে ফায়ার সার্ভিস অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্স অধিদফতরের পরিদর্শক রাসেল সিকদার বলেন, বৃহস্পতিবার (১০ ডিসেম্বর) দিনগত রাতে ৩টা ৪৫ মিনিটে চকবাজারের উর্দুরোড এলাকায় এ আগুনের সূত্রপাত হয়। খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের ১৫টি ইউনিট শুক্রবার সকাল ৮টা ৪০ মিনিটে আগুন নেভাতে সক্ষম হয়। তবে ভবনটি পুরোপুরি পুড়ে গেছে। শুধু দাঁড়িয়ে আছে কংক্রিটের কাঠামো।

ফায়ার সার্ভিসের কর্মকতারা জানিয়েছেন, কারখানায় দাহ্য পদার্থ থাকায় আগুন দ্রুত ছড়িয়েছে। আগুন নেভাতে তাই বেগ পেতে হয়েছে। প্রতিটি অগ্নিকাণ্ডের পর ফায়রা সার্ভিস থেকে সুপারিশ করা হয়, এই এলাকা থেকে অবৈধ প্লাস্টিক কারখানা সরানোর জন্য, কিন্তু কোনও কিছুতেই কাজ হয়নি।

ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স উপ-পরিচালক দেবাশীষ বর্ধন জানান, এই ভবনটি এর আগেও ফায়ার সার্ভিস পরিত্যক্ত ঘোষণা করে। তারপরও এখানে কারখানা করা হয়েছে। এটি অত্যন্ত ঝুঁকিপূর্ণ ভবন।

স্থানীয় বাসিন্দা জাহাঙ্গীর বলেন, গত পাঁচ বছরে এই ভবনে চারবার অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। ভবনটি ঝুঁকিপূর্ণ জানার পরও এখানে প্লাস্টিকের কারখানা করা হয়েছে। কারখানায় দিন-রাত কাজ চলে।

স্থানীয়রা জানিয়েছেন, অগ্নিকাণ্ডের সময় শ্রমিকদের শিফট পরিবর্তন চলছিল। তাই বেশি শ্রমিক সেখানে ছিলেন না। এক গ্রুপ কাজ শেষ করে অন্য গ্রুপ ফের কাজ শুরু করবেন—এমন সময় আগুন লাগে। আগুনের পর শ্রমিকরা দ্রুত বের হয়ে যান। দুজন বয়স্ক লোক আটকা পড়েছিলেন, তারাও পরে বের হয়ে আসেন। হতাহতের কোনও খবর পাওয়া যায়নি।

ভবনটির একপাশ ধসে পড়েছে। বর্তমানে আরও ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে পড়েছে ভবনটি। চকবাজার থানা পুলিশের কয়েকজন সদস্য সেখানে দায়িত্ব পালন করছেন।

আপনার মতামত লিখুন :