গাইবান্ধায় ৭ বছর বয়সী শিশুর আত্মহত্যা।

আব্দুর রহিম বাদশা, গাইবান্ধা প্রতিনিধি
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  11:07 PM, 27 October 2020

Share

গাইবান্ধা জেলার ফুলছড়ি উপজেলার কঞ্চিপাড়া ইউনিয়নের মদনের পাড়ায় নানার বাড়িতে বেড়াতে এসে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্নহত্যা করেছে সালমা নামে এক সাত বছর বয়সী শিশু। এত ছোট শিশুর গলায় ফাঁস দিয়ে আত্নহত্যার ঘটনায় এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে।

নিহত শিশু গাইবান্ধা সদর উপজেলার বোয়ালী ইউনিয়নের স্কুলের বাজার এলাকার সাজু মিয়ার মেয়ে।

ফুলছড়ি থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) কাওসার আলী জানান, আজ মঙ্গলবার (২৭ অক্টোবর) দুপুরে নানার বাড়িতে বেড়াতে এসে বাড়ীর বাহিরে বড় বোনের সাথে খেলা করছিল। সেসময় বড় বোন গোসলের কথা বললে সালমা আরও খেলবে বলে জানায়। এনিয়ে দুই বোনের মধ্যে একটু রাগারাগির ঘটনা ঘটে। এরপর বোনের সাথে বাড়িতে এসে নানীর কাছ থেকে একটি মুড়ির মলা খাওয়ার জন্য চেয়ে নেয়। একসময় কাউকে কিছু না জানিয়ে পাশের ঘরে ঢুকে দরজা লাগিয়ে দেয় সালমা। পরবর্তীতে নিহতের বড়বোন ভিতর থেকে দরজা লাগানো ঘরে অনেকক্ষণ ডাকাডাকি করেও কোন সাড়া শব্দ না পেয়ে টিনের ছিদ্র দিয়ে দেখতে পায়, ছোট বোন সালমা ঘরের ধর্ণার সাথে একটি রশিতে ফাঁস দিয়ে ঝুলে আছে। এসময় তার ডাক চিৎকারে তার মামা, নানি ও স্বজনরা ঘরের দরজা ভেঙ্গে গলায় লাগানো দড়ি কেটে দিয়ে মুমূর্ষু সালমাকে উদ্ধার করে গাইবান্ধা সদর হাসপাতালে নেওয়ার পথে সে মারা যায়।

তিনি আরও বলেন, প্রাথমিক তদন্ত কাজ করতে ঘটনা স্থলে এস আই আনিসকে পাঠানো হয়েছে। কি কারণে শিশুটি আত্নহত্যা করেছে তা এখনো স্পষ্ট নয়। তবে নিহতের বাবা-মা ও আত্মিয়স্বজনের কোন অভিযোগ না থাকায় থানায় একটি ইউডি মামলা শেষে পরিবারের কাছে লাশ হস্তান্তর করা হয়েছে।

আপনার মতামত লিখুন :