You are here
Home > বাংলাদেশ > মহান শিক্ষা দিবস উপলক্ষে গাইবান্ধায় সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্টের ছাত্র সমাবেশ ও র‍্যালী।

মহান শিক্ষা দিবস উপলক্ষে গাইবান্ধায় সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্টের ছাত্র সমাবেশ ও র‍্যালী।

Share

১৭ সেপ্টেম্বরের মহান শিক্ষা দিবস উপলক্ষে গাইবান্ধায় ছাত্র সমাবেশ ও র‍্যালী অনুষ্ঠিত হয়েছে।সোমবার (২১ সেপ্টেম্বর) সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্ট গাইবান্ধা জেলা শাখার উদ্যোগে জেলা শহরের পৌর শহীদ মিনার চত্ত্বরে এ ছাত্র সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।

উক্ত সমাবেশে সংগঠনের জেলা সভাপতি পরমানন্দ দাসের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন সাবেক ছাত্রনেতা ও বাসদ (মার্কসবাদী)গাইবান্ধা জেলার সদস্য কমরেড নিলুফার ইয়াসমিন শিল্পী , ছাত্র ফ্রন্ট জেলা সহ-সভাপতি মাহবুব আলম মিলন, সাধারণ সম্পাদক রাহেলা সিদ্দিকা, সাংগঠনিক সম্পাদক বন্ধন কুমার বর্মন, মাছুদা আক্তার, কলি রানী বর্মন, উম্মে নিলুফা তিন্নি প্রমূখ।

এসময়,বক্তাগন বলেন ১৯৬২সালে আইয়ুব সামরিক সরকারের শাসনামলে শিক্ষা সচিব এস এম শরীফের নেতৃত্বে গোটা শিক্ষা ব্যবস্থাকে ঢেলে সাজানোর কথা বলে, শিক্ষার মধ্যে সাম্প্রদায়িকতা ,ধর্মান্ধতা, এবং শিক্ষা সংকোচন নীতির প্রতিফলন ঘটায়। তবে এদেশের তৎকালীন লড়াকু ছাত্র সমাজ তা মেনে নেয়নি।সে সময়ের ১৯৬২সালে ১৭সেপ্টেম্বর পাকিস্তান শাসক গোষ্ঠীর শিক্ষা সংকোচন নীতির বিরুদ্ধে লড়াই করতে গিয়ে পুলিশের গুলিতে প্রাণ দিয়েছিল মোস্তফা,বাবুল, ওয়াজিউল্লাহসহ নাম না জানা অসংখ্য ছাত্র। তাদের দাবি ছিল শিক্ষার অধিকার হবে সর্বজনীন, অবৈতনিক, গণতান্ত্রিক কিন্তু তাদের সেই স্বপ্ন আজো বাস্তবায়িত তো হয়ইনি বরং শিক্ষার বেসরকারিকরণ – বাণিজ্যিকীকরণের দ্বারকে আরো উন্মুক্ত করে দেয়া হচ্ছে। বক্তাগণ আরো বলেন করোনাকালীন সময়ে শিক্ষার্থীদের ১বছরের বেতন-ফি মওকুফ,মেসভাড়া-বাড়িভাড়া মওকুফ,বন্যাকবলিত এবং অসচ্ছল শিক্ষার্থীদের শিক্ষা উপকরণসহ আর্থিক সহযোগিতা প্রদান, পর্যাপ্ত ব্যবস্থা গ্রহণ ব্যতীত অনলাইন ক্লাস পরিচালনা করা বাতিল,শিক্ষা ঋণ নয়,ডিভাইস-ডাটা ক্রয়ে অনুদান প্রদান,বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক- কর্মকর্তা-কর্মচারীদের জন্য বিশেষ বরাদ্দ, নিপীড়নমূলক ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন ২০১৮ বাতিল করা, গাইবান্ধা সরকারি মহিলা কলেজ শহরের বাইরে স্থানান্তরের চক্রান্ত বন্ধ সেইসাথে শিক্ষা দিবসের চেতনায় সর্বজনীন, বৈষম্যহীন,বিজ্ঞানভিত্তিক, সেকুলার,একই ধারার শিক্ষানীতির দাবী জানান।

সমাবেশ শেষে সংগঠনটির একটি র‍্যালী জেলা শহরে বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে বাসদ (মার্কসবাদী) অফিসে এসে র‍্যালীটি শেষ হয়।

Top