You are here
Home > বাংলাদেশ > যুব সমাজকে মাদক বিমুখ করতে জ্ঞান ও ক্রিড়া চর্চায় সুন্দরগঞ্জের এমপি’র নানা পদক্ষেপ।

যুব সমাজকে মাদক বিমুখ করতে জ্ঞান ও ক্রিড়া চর্চায় সুন্দরগঞ্জের এমপি’র নানা পদক্ষেপ।

Share

মাদকের ছোঁবলে ছন্নছাড়া আজকের যুব সমাজ।মাদক নির্মূলে প্রশাসন তৎপর থাকলেও মাদক নির্মূল করা সম্ভব হচ্ছে না। ক্রমে ক্রমেই যুবক ও তরুণরা মাদকে আসক্ত হচ্ছে। তাই গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ উপজেলার তরুণ ও যুব-সমাজকে মাদক থেকে ফেরাতে জ্ঞান ও ক্রিড়া চর্চায় নানা পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে স্থানীয় সংসদ সদস্য ব্যারিষ্টার শামীম হায়দার পাটোয়ারী।

তিনি যুবকদেরকে মাদক থেকে বিমুখ করে খেলাধূলায় আকৃষ্ট করতে উপজেলার বিভিন্ন স্কুল কলেজের মাঠে আধুনিক স্টেজ,গ্যালারী,ক্রিকেট পিস ও গোলকক্ষ নির্মাণ কাজ হাতে নিয়েছেন।

সম্প্রতি সুন্দরগঞ্জ আব্দুল মজিদ সরকারি বালক উচ্চ বিদ্যালয়ের মাঠে আধুনিক স্টেজ ও গ্যালারী নির্মাণকাজ শেষ করেছেন।এ উপজেলার চন্ডিপুর খেলার মাঠের একাংশে গ্যালারী নির্মাণ করেছেন।তিনি উপজেলার বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের খেলার মাঠে ক্রিকেট পিস, গোলবার সংস্কার ও নির্মাণ এবং মাঠের চতূর্দিকে সোলার লাইট স্থাপনের কাজ হাতে নিয়েছেন।

এছাড়া জ্ঞান চর্চায় সুন্দরগঞ্জে নির্মিত হচ্ছে পাঁচটি আধুনিক লাইব্রেরী।যথাক্রমে এ উপজেলার গুরুত্বপূর্ণ স্থান- এম আই পাটোয়ারী পলিটেকনিক, সুন্দরগঞ্জ মহিলা ডিগ্রী কলেজ, শোভাগঞ্জ ডিগ্রী কলেজ, ধুবনী মহিলা ডিগ্রী কলেজ ও পাঁচপীর বাজারে এ লাইব্রেরি নির্মাণ হচ্ছে।

সুন্দরগঞ্জের সংসদ সদস্য ব্যারিষ্টার শামীম হায়দার পাটোয়ারী রবিবার(২০সেপ্টেম্বর) বলেন আব্দুল মজিদ সরকারি বালক উচ্চ বিদ্যালয়ের আধুনিক স্টেজ ও গ্যালারীর একাংশের নির্মাণ কাজ শেষ করা হয়েছে। এরআগে চন্ডিপুর খেলার মাঠের একাংশে গ্যালারি নির্মাণ সম্পূর্ণ হয়েছে।তিনি বলেন পর্যায়ক্রমে উপজেলার তরুণ যুবক ও ছাত্র ছাত্রীরা যাতে খেলাধুলার প্রাকটিস করতে পারে সেজন্য উপজেলার বিভিন্ন স্কুল কলেজ মাঠে গোলবার,ক্রিকেট পিস ও যাতে সবাই উৎসাহ নিয়ে খেলাধূলা গ্যালারীতে বসে উপভোগ করতে পারে সেজন্য গ্যালারী নির্মাণ করা হবে। তিনি বলেন সরকারি টি আর কবিখার বিশেষ বরাদ্দের অর্থায়নে এগুলোর নির্মাণ কাজ বাস্তবায়ন করা হচ্ছে।

কয়েকদিন পূর্বে নির্মাণধীন পাঁচপীর পাঠগার পরিদর্শন শেষে এমপি শামীম হায়দার পাটোয়ারী বলেন,শীঘ্রই পাঠাগার গুলোর কার্যক্রম শুরু হবে।তিনি বলেন উন্মুক্ত বই পদ্ধতির এ লাইব্রেরীগুলোতে পাঠ্যপুস্তক থাকবে। থাকবে মুক্তিযুদ্ধ, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জীবনী,কারিগরি ও রিসার্স ভিত্তিক বই ও উপন্যাসসহ বিভিন্ন লেখকের জ্ঞাণভিত্তিক বই। থাকবে যুবদের ও শিক্ষার্থীদের বসারও ব্যবস্থা। অর্থাৎ উন্মুক্ত বই পদ্ধতি এ লাইব্রেরীগুলো হবে এক একটি গবেষণাগার এ পাঠাগারে এসে বিভিন্ন জ্ঞান, রিচার্স ও মরাল স্টোরি ভিত্তিক বই পড়ে তরুণ প্রজন্ম তাদের জ্ঞাণের পরিধির বিকাশ ঘটাতে পারবে।

এমপি শামীমের এমন উদ্যেগে স্থানীয়রা বলেন, এটা একটা ভালো দিক। খালধূলায় উৎসাহ পেলে ছেলে- মেয়েরা মাদক থেকে বিমুখ হবে এবং ছেলে-মেয়েদের হাতে বই থাকলে মাদক বিদায় নিবে।

Top