২৪ ঘন্টা না পেরোতেই ড্রামভর্তি নারীর লাশের রহস্য উদঘাটন করলেন ওসি আফজাল

বিশেষ প্রতিনিধি।
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  08:15 PM, 21 November 2020

Spread the love

গত শুক্রবার (২০ নভেম্বর) বরিশালের গৌরনদী উপজেলার ভুরঘাটা লোকাল বাসট্যান্ডে যাত্রিবাহী লোকাল বাসের মধ্য থেকে ড্রাম ভর্তি অজ্ঞাত নারীর(৩০) লাশ উদ্ধার করে গৌরনদী মডেল থানা পুলিশ। খবর পেয়ে তৎক্ষণাৎ গৌরনদী মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ আফজাল হোসেন ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। অজ্ঞাত লাশের পরিচয় নিশ্চিত এবং রহস্য উদঘাটনে শুরু করেন তদন্ত। ২৪ ঘন্টা না পেরোতেই ওসি আফজাল হোসেনের বিচক্ষণতায় পরিচয় মিললো উদ্ধারকৃত লাশের এবং হত্যার রহস্য ক্রমেই উদঘাটিত হচ্ছে। মামলার সুষ্ঠু তদন্তের স্বার্থে গনমাধ্যমে সেই তথ্য তুলে ধরা ঠিক হবেনা বলে তিনি উল্লেখ করেন।

পুলিশ সূত্রে জানা যায়, মুলাদী থানার নাজিরপুর নিবাসী সাহেব আলীর কন্যা সাবিনা বেগম (৩৪), গৌরনদী উপজেলার দিয়াশুর ৮নং ওয়ার্ডে বসবাস করেন। তার স্বামীর নাম শহীদুল ইসলাম, তিনি বিদেশে থাকেন। দুই সন্তানের জননী ছিলেন নিহত সাবিনা বেগম। এটি তার ২য় বিবাহ বলে জানা যায়। বরিশালে অজ্ঞাত কারো সাথে দেখা করতে গিয়েছিলেন বলে তথ্য পাওয়া যায়।

গৌরনদী মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ আফজাল হোসেন জানান, নির্মম এই হত্যাকাণ্ডের রহস্য উদঘাটন এবং দ্রত লাশটি সনাক্তে তিনি সহ তার টিম মাঠে নামে। লাশটির পরিচয় সনাক্ত করতে তারা সক্ষম হয়েছেন এবং হত্যার রহস্য উদঘাটনে অনেক তথ্য সংগ্রহ করা হয়েছে তবে মামলার সুষ্ঠু তদন্তের স্বার্থে এখনই কিছু জানানো সম্ভব হচ্ছে না।

উল্লেখ্য গত শুক্রবার (২০ নভেম্বর) সন্ধ্যা সোয়া ছয়টার দিকে নথুল্লাবাদ বাসষ্ট্যান্ড থেকে পিএস ক্লাসিক নামের একটি বাস(বরিশাল-জ ১১-০১০৬) ভুরঘাটার উদ্দেশ্যে ছেড়ে আসে। পথিমধ্যে গড়িয়ারপাড় নামক স্থান থেকে একটি ড্রাম নিয়ে অজ্ঞাত এক যাত্রী লোকাল বাসে উঠে। বাসটি ভুরঘাটা বাসস্ট্যান্ডে আসার পর সকল যাত্রীর সাথে ওই লোকটি ড্রাম না নিয়ে বাস থেকে নেমে যায়। পরবর্তীতে ড্রামটি বাসের মধ্যে দেখতে পায় বাসের হেলপার-সুপারভাইজার। রাত সাড়ে আটটার দিকে বাসের হেলপার-সুপারভাইজার ড্রাম খুলে লাশটি দেখতে পেয়ে থানা পুলিশকে খবর দেয়। শুক্রবার রাতে লাশটি উদ্ধার করেন গৌরনদী মডেল থানা পুলিশের সদস্যরা।

আপনার মতামত লিখুন :