লেবাননে পদত্যাগের এক বছর পরেই, ফের প্রধানমন্ত্রীর ক্ষমতা পেয়েছেন “সা’দ হারিরি”।

মনির হোসেন রাসেল
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  08:07 AM, 23 October 2020

Spread the love

“সা’দ হারিরি” লেবাননের প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব থেকে ঠিক এক বছর অাগেই পদত্যাগ করেছিলেন তিনি। কিন্তু ফের ক্ষমতা পেয়েছেন “সা’দ হারিরি”। গত বছরের অক্টোবরে তিনি বিক্ষোভের মুখে পদত্যাগ করেছিলেন।

জানা যায়, সংসদ সদস্যদের সিংহভাগ ভোট পেয়ে নাকি আবারও বিজয়ী হয়েছেন হারিরি। বৃহস্পতিবার দেশটির প্রেসিডেন্ট “মিশেল অাউন” এই মনোনয়নের কথা জানান। সুন্নি মুসলিম রাজনীতিক ব্যাক্তি হারিরির জন্য এটি হবে চতুর্থবার প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন।

বিশেষজ্ঞদের নিয়ে মন্ত্রিসভা গঠনের প্রতিশ্রুতি দিয়ে তিনি বলেন, দ্রুতই দেশকে গভীর সংকট থেকে বের করে আনতে হবে। প্রধানমন্ত্রী হরিরি সরকার গঠনের জন্য নিযুক্ত হওয়ার পরে বাবদা প্রাসাদ থেকে সংবাদ সম্মেলনে তিনি অারো জানান, আমি নির্দলীয় বিশেষজ্ঞদের একটি সরকার গঠন করব এবং আমি দ্রুত সরকার গঠনের দিকে মনোনিবেশ করব, কারণ সময় শেষ হচ্ছে, এবং এটিই শেষ সুযোগ।

উল্লেখ্য যে, ১৯৭৫-১৯৯০ সালের গৃহযুদ্ধের পর লেবানন বর্তমানে এখন সবচেয়ে সংকটময় সময় পার করছে। দেশটিতে ব্যাংকিং, মুদ্রা সঙ্কট, রাষ্ট্রীয় ঋণ এবং দারিদ্র্য বেড়ে যাওয়ার মতো কঠিন চ্যালেঞ্জ রয়েছে।

“হারিরির প্রধানমন্ত্রী হওয়া বিক্ষোভকারীদের জন্য পরাজয় হতে পারে। পরিবর্তনের দাবিতে বিক্ষোভে নামা মানুষেরা হারিরিকে রাজনৈতিক শ্রেণির প্রতীক হিসেবে বিবেচনা এবং সংকটের জন্য দায়ী করে আসছে”।

নতুন সরকার গঠনে সমঝোতার জন্য কয়েক সপ্তাহের রাজনৈতিক উত্থান-পতনের পর বৃহস্পতিবার হারিরিকে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে মনোনয়ন দেওয়া হয়। হারিরিকে সমর্থন জানিয়েছে ফিউচার লেজিসলেটর, শিয়া আমাল পার্টি, ড্রুজ রাজনীতিক ওয়ালিড জুমব্লাটের দল।

উল্লেখ্য যে, গত বছরের নভেম্বর মাসে সরকার বিরুধী বিক্ষোভের মুখে প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব থেকে পদত্যাগ করেন “সা’দ হারিরি”। পদত্যাগের পর থেকে শুরু হয় লেবাননে একের পর এক সঙ্কট। সঙ্কট নিরসনেরর জন্য নতুন করে নির্বাচন হয়, মনোনীত হয় নতুন প্রধানমন্ত্রী। নতুন প্রধানমন্ত্রী হিসেবে নিয়োগ দেয়া হয়
“হাসান ডিয়াব” তিনিও ব্যর্থ হলেন লেবানন চলমান সঙ্কট বিমোচনে। বৈরুত বন্দরে বিষ্ফোরণের পর তিনিও পদত্যাগ করতে বাধ্য হন। এর কিছু পর অামার নতুন করে নিয়োগ দেয়া হয় “মস্তুফা অাদিব” তিনিও কিছু করতে পারেনি, শুরুতেই ধাক্কা সামলাতে না পেরে দুই সপ্তাহের মধ্যেই সেচ্ছায় দায়িত্ব থেকে সড়ে যান।

আপনার মতামত লিখুন :